সারাদেশের কৃষি কার্যক্রম তদারকিতে ৮ কর্মকর্তা

ঢাকা অফিস ॥ 

করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে সারাদেশকে ১৪টি কৃষি অঞ্চলে ভাগ করে এই অঞ্চলগুলোতে বোরো ধান ও রবি ফসল উৎপাদনসহ সার্বিক কৃষি কার্যক্রম তদারকি ও সমন্বয়ের জন্য কৃষি মন্ত্রণালয়ের আটজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। 
অতিরিক্ত সচিব পদমর্যাদার এই কর্মকর্তাদের ১৪টি কৃষি অঞ্চলের সার্বিক কৃষি কার্যক্রম তদারকি ও সমন্বয়ের দায়িত্ব দিয়ে গত ১৩ এপ্রিল কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে অফিস আদেশ জারি করা হয়েছে। 

দেশে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি বৃদ্ধি পাওয়ায় গত ১৪ এপ্রিল থেকে আট দিনের ‘কঠোর বিধিনিষেধ’ জারি করে সরকার। দেশের সবচেয়ে বড় ফসল বোরো কেবল পাকতে শুরু করেছে। 

অফিস আদেশে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯-এর উদ্ভূত পরিস্থিতিতে রবি মৌসুমে বোরো ধান ও রবি মৌসুমের ফসল (গ্রীষ্মকালীন ভুট্টা, সবজি, তেল জাতীয় ফসল, ডাল জাতীয় ফসল, মসলা জাতীয় ফসল) আবাদ ও উৎপাদন কার্যক্রমসহ ১৪টি কৃষি অঞ্চলের সার্বিক কৃষি কার্যক্রম মন্ত্রণালয়ের পক্ষে তদারকির জন্য কৃষি মন্ত্রণালয়ের আটজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।  

কৃষি মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. মো. আবদুর রৌফ চট্টগ্রাম ও রাঙ্গামাটি অঞ্চল, গবেষণা অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব কমলারঞ্জন দাশ রাজশাহী ও বগুড়া অঞ্চল, সার ব্যবস্থাপনা ও উপকরণ অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. মাহবুবুল ইসলাম দিনাজপুর ও রংপুর অঞ্চল, নিরীক্ষা অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. আব্দুল কাদের কুমিল্লা অঞ্চলের দায়িত্ব পেয়েছেন। 

এছাড়াও সম্প্রসারণ অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. হাসানুজ্জামান কল্লোল সিলেট অঞ্চল, বীজ অনুবিভাগের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) বলাই কৃষ্ণ হাজরা যশোর ও খুলনা অঞ্চল, পিপিসি (নীতি, পরিকল্পনা ও সমন্বয়) অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. রুহুল আমিন তালুকদার ফরিদপুর ও বরিশাল অঞ্চল এবং প্রশাসন অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব ওয়াহিদা আক্তারকে ঢাকা ও ময়মনসিংহ অঞ্চলের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। 

কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মেসবাহুল ইসলামের সার্বিক নির্দেশনায় অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রসারণ অনুবিভাগ) মো. হাসানুজ্জামান কল্লোল সব অঞ্চলের কার্যক্রম সমন্বয় করবেন বলে অফিস আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে। 
দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা বোরো ধান এবং পেঁয়াজসহ অন্যান্য রবি শস্যের আবাদের পরিমাণ নির্ধারণ এবং উৎপাদন কার্যক্রম মনিটরিং, ভর্তুকি দামে দেয়া কৃষি যন্ত্রপাতিসহ সব কৃষি যন্ত্রপাতির যথাযথ ব্যবহার তদারকি করবেন। 
এছাড়া বিভিন্ন ফসলের প্রণোদনা, পুনর্বাসন, ক্ষতিপূরণ ও রাজস্ব প্রদর্শনী সংক্রান্ত কার্যক্রম বাস্তবায়ন এবং সমলয় চাষাবাদ পরিদর্শন করবেন এই কর্মকর্তারা। 

দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর, বিভিন্ন অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক এবং জেলার উপ-পরিচালকদেরকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেবেন এবং তদারকি করবেন। এক্ষেত্রে নিজ উইংয়ের যুগ্মসচিব ও উপসচিবদেরকে তার অঞ্চলের তদারকিতে সম্পৃক্ত করবেন বলে অফিস আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে। 
এতে আরও বলা হয়, নিয়মিতভাবে কৃষি মন্ত্রণালয়ের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে নিজ অঞ্চলের বোরো ফসলের মাঠ অবস্থা, কৃষি শ্রমিক ও যন্ত্রপাতিসহ বিভিন্ন প্রকার প্রণোদনা সম্পর্কিত তথ্যাদি নিয়মিত আপলোড করবেন। 
 

You May Also Like