করোনার ঝুঁকিতেও ৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে কৃষিঋণের নতুন লক্ষ্যমাত্রা ২৬ হাজার কোটি টাকা

আমিষ ডেস্ক ॥ 

নতুন অর্থবছরে (২০২০-২১) কৃষি ও পল্লী খাতে ২৬ হাজার ২৯২ কোটি টাকা বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক, যা আগের অর্থবছরের তুলনায় ৮ দশমিক ৯৯ শতাংশ বেশি। এই অর্থবছরে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংকগুলো ১১ হাজার ৪৫ কোটি টাকা এবং বেসরকারী ও বিদেশী বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো ১৫ হাজার ২৪৭ কোটি টাকা কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ করবে। বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনা মহামারির আর্থিক সঙ্কট মোকাবিলায় এবং সরকারের কৃষি ও কৃষিবান্ধব নীতির সঙ্গে সঙ্গতি রেখে টেকসই উন্নতমানের নির্ধারিত লক্ষ্যের প্রথম ও প্রধান তিনটি লক্ষ্য তথা-দারিদ্র্য বিমোচন, ক্ষুধামুক্তি এবং গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়নের উদ্দেশ্য পল্লী অঞ্চলে ব্যাপকহারে কৃষি ঋণপ্রবাহ বৃদ্ধি করা হবে। এর মাধ্যমে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংকের কৃষিঋণ বিভাগ থেকে ২০২০-২১ অর্থবছরের কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচি প্রণয়ন করা হয়েছে। নতুন অর্থবছরে (২০২০-২১) কৃষি ও পল্লী খাতে ২৬ হাজার ২৯২ কোটি টাকা বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। নীতিমালা অনুযায়ী কৃষিঋণের প্রধান তিনটি খাতকে (শস্য, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ) অন্যান্য খাতের তুলনায় অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। শস্য খাতে মোট লক্ষ্যমাত্রার ন্যূনতম ৬০ ভাগ, মৎস্য খাতে ১০ ভাগ এবং প্রাণিসম্পদ খাতে লক্ষ্যমাত্রা ন্যূনতম ১০ ভাগ বিতরণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 
উল্লেখ, সদ্য সমাপ্ত (২০১৯-২০) অর্থবছরে কৃষকদের জন্য ২৪ হাজার ১২৪ কোটি টাকা ঋণ বরাদ্দ রেখেছিল ব্যাংখগুলো। কিন্তু অর্থবছর শেষে এ খাতের ঋণ বিতরণের পরিমাণ দাড়িয়েছে ২২ হাজার ৭৪৯ কোটি টাকা। তা গত অর্থবছরে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫ দশমিক ৬৯ শতাংশ বা এক হাজার ৩৭৫ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ কম। প্রসঙ্গত, সরকারের পক্ষ থেকে করোনা সঙ্কটের সময় কৃষি খাতকে সর্বাত্মকভাবে এগিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হলেও ব্যাংকগুলো গাফিলতির কারণে কৃষকরা আগের মতো ঋণ পায়নি। 
 

You May Also Like