ঠাকুরগাঁওয়ে বিরল প্রজাতির ১১ শকুন উদ্ধার

ঠাকুরগাঁও থেকে সংবাদদাতা ॥ 

ঠাকুরগাঁওসহ বিভিন্ন স্থান থেকে বিরল প্রজাতির ১১টি শকুন উদ্ধার করা হয়েছে। প্রকৃতির ঝাড়ুদার হিসেবে পরিচিত বিলুপ্ত প্রায় এসব পাখি রাখা হয়েছে দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার জাতীয় উদ্যানে সিংড়া ফরেস্টের শকুন উদ্ধার ও পরিচর্যা কেন্দ্রে। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে উদ্ধার করা এসব শকুন সুস্থ করার জন্য সিংড়া ফরেস্টে গড়ে তোলা হয়েছে এ পরিচর্যা কেন্দ্রটি। চার বছর আগে বাংলাদেশ বন বিভাগ ও আইইউসিএনের উদ্যোগে চালু করা হয় শকুন উদ্ধার ও পরিচর্যা কেন্দ্র। এখানে দীর্ঘ পরিচর্যায় সুস্থ করার পর এদের প্রকৃতিতে ছেড়ে দেয়া হয়। ঠাকুরগাঁও বন বিভাগের কর্মকর্তা (রেঞ্জার) হরিপদ দেবনাথ জানান, শীত মৌসুমে অন্য দেশ থেকে আসা কান্ত ১১টি শকুনকে বিভিন্ন স্থান থেকে উদ্ধার করা হয়। আগের বছরের রয়েছে ১টি শকুন। তাদের পরিচর্যা কেন্দ্রে রেখে সুস্থ করে তোলা হয়েছে। পরিবেশের পরম বন্ধু খাঁচায় রাখা এই পাখিগুলোকে আগামী মাসে আনুষ্ঠানিকভাকে অবমুক্ত করা হবে বলে জানায় বন বিভাগ। পরিচর্যা কেন্দ্রের কর্মী বেলাল হোসেন বলেন, এই পাখি দেখতে দূরদূরান্ত থেকে শত শত দর্শনার্থী এসে ভিড় করে। জেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগের কর্মকর্তা মো. আলতাফ হোসেন বলেন, এক সময় রংপুর বিভাগের ঠাকুরগাঁওসহ পার্শ্ববর্তী জেলায় অনেক শকুন দেখা যেত। কিন্তু কালের পরিক্রমায় তা এখন বিলুপ্তির পথে।

You May Also Like